Saidul Islam Roney

Web/DB Developer

নিরবের জন্মদিন- গল্পটা বন্ধুত্তের- পর্ব ২

By | April 30, 2016 | 0 Comment

saidul roney

আজ ২০২৩ সালের ১৫ আগষ্ট।নিরবের জন্মদিন।একটা সাক্ষাৎকারে নিরবকে জিজ্ঞাস করা হলো,নীলাভ আপনার বেষ্ট ফ্রেন্ড,আর আপনি নিলাকে পছন্দ করেন জানা সত্তেও নীলাভ নিলার সাথে রিলেশন করলো,আপনি কিছু বলেন নাই?উত্তরে নিরব বলল,দেখেন এখানে আমি নিলাকে ভালোবাসি,নিলা কিন্তু আমাকে ভালোবাসেনা।আর ভালোবাসার মানুষটিকে না পেলেও সবাই চায় তার প্রিয় মানুষটিকে ভালো থাকুক সুখে থাকুক।আমিও চাইছি,তাইতো ভালোবাসার মানুষটিকে বন্দুর হাতে তুলে দিলাম।কারন নিলার পিছনে প্লে বয় থেকে শুরু করে অনেক খারাপ ধরনের ছেলে গুরতো,তাকে পছন্দ করত।

আমার ভাবনা ছিলো নিলা যদি ওই ছেলেদের পাল্লায় পরে যায়,তাহলে তার জীবনটা নষ্ট হয়ে জাবে।আর আমি এটাও জানতাম যে নীলাভের সাথে যদি নিলার রিলেশন হয়,তাহলে নিলা অনেক সুখে থাকবে।কারন বন্দুটাতো আমার আমিয়েই ভালো জানি।তাই আমি নীলাভকে রিকোয়েস্ট করলাম নিলার সাথে জেনো রিলেশন করে,নীলাভ তাই করল এ জন্য আমি তার কাছে সারাজীবন রিনি হয়ে থাকবো।ও হে নীলাভ এর কিছুই জানতনা।

তার পর সাক্ষাৎকারক নিরবকে আরেকটা প্রশ্ন করল যে,আজকে আপনার জন্মদিনে আপনার মন খারাপ,আর নীলাভের সাথে নিলা আসেনি কেন?উত্তরে নিরব বললঃআজকে আমার মন খারাপের কারন নিলা না আসাই(think positive)।আসলে আমি আজকে দুই নৌকার মাঝখাণে। একটা মানুষকে বাঁচাতে গিয়ে আরেকজনকে মেরে পেল্লাম। ভালোবাসার মানুষটিকে সুখী রাখতে গিয়ে যে বন্দুর জীবনটা নষ্ট করে পেলব তা কোনো দিনও বুঝতে পারিনি।নীলাভ আর নীলার মধ্যে প্রায়ই জগরা হতো,মাঝে মাঝে আমিও সমাধান করতাম।

নীলা নীলাভের কাছে প্রায় অনেক বার ডিভোর্স চাইছে,কিন্তু নীলাভের জন্য হয়নি।শেষ পর্যন্ত নিলার ইচ্ছায় তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়।আজ আমি নীলাভের দিকে তাকাতে পারিনা।নিজকে দুশি মনে হচ্ছে,নীলাভ আজ আমি আবারো দুই বারের মত তোর কাছে রিনি হয়ে গেলাম।সরি বন্দু।
(কাল্পনিক)

TAGS

0 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *